ITV News
Infinity TV News

ইউএনও’র ওপর হামলার ঘটনায় আটক যুবলীগের ৩ নেতা বহিষ্কার

নিউজ ডেস্ক:
দিনাজপুর ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমকে হত্যাচেষ্টায় জড়িত সন্দেহে আটক তিন যুবলীগ নেতাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। পুলিশের হাতে আটক এ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বহিষ্কৃত যুবলীগের তিন নেতা হলেন ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম (৩৫)। তিনি ঘোড়াঘাট উপজেলার কশিগাড়ী গ্রামের বাসিন্দা। অপর দুজন হলেন ঘোড়াঘাট উপজেলার দক্ষিণদেবীপুর গ্রামের বাসিন্দা ৩ নম্বর শিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ আলম (৩৪) ও সাগরপুর গ্রামের ও উপজেলা যুবলীগের সদস্য আসাদুল হক (৩৫)।

শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ।

রাশেদ পারভেজ বলেন, ‘যুবলীগ কোনো সন্ত্রসী বা চাঁদাবাজকে প্রশ্রয় দেয় না। ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীরসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। তারা যদি ঘোড়াঘাট ইউএনও’র হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকে, তাহলে প্রচলিত আইনে শাস্তি প্রদানের দাবি জানাই।’

রাশেদ পারভেজ জানান, কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী যুবলীগের তিনজনকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার অভিযোগে এ তিন যুবলীগ নেতাসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ, একজনকে আটক করেছে র‌্যাব।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম জানান, আজ সকালে ঘোড়াঘাট ইউএনও’র বড় ভাই শেখ ফরিদ উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি ঘোড়াঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মমিনুল ইসলাম তদন্ত করছেন।

উল্লেখ্য, গত বুধবার মধ্যরাতে ঘোড়াঘাট উপজেলা উপজেলা পরিষদের নৈশ্য প্রহরীকে বেঁধে রেখে দুর্বৃত্তরা পিপিই ও মাস্ক পরে বাসায় প্রবেশ করে ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় ও শরীরে বেধম আঘাত করে। এ সময় বাসায় থাকা তার বাবা শেখ ওমর আলী মেয়েকে বাঁচাতে এলে তাকেও সন্ত্রাসীরা গুরুতর আঘাত করে। দুর্ঘটনার পর সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর অবস্থায় ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা শেখ ওমর আলীকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ইউএনও ওয়াহিদা খানমের স্বামী রংপুর পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেজবাহুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রাণালয়ের ব্যবস্থাপনায় তার স্ত্রী ওয়াহিদা খানমকে বিমানবাহিনীর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল রাতেই তার মাথার অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তিনি এখন অনেকটা আশঙ্কা মুক্ত।

Leave A Reply

Your email address will not be published.